জোড় বা সমোচ্চারিত শব্দ (samoccarito sabda) ও তার প্রয়োগ

এখানে জোড় বা সমোচ্চারিত শব্দ (samoccarito sabda) ও তার প্রয়োগ সম্পর্কে কয়েকটি পেজে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

জোড় বা সমোচ্চারিত শব্দ- ক থেকে ন পর্যন্ত

জোড় বা সমোচ্চারিত শব্দ- ক থেকে ন পর্যন্ত

বাংলা ভাষায় এমন কতগুলো শব্দ আছে যেগুলোর উচ্চারণ প্রায় এক হলেও বানান এবং অর্থের দিক দিয়ে পার্থক্য রয়েছে। বাংলা ব্যাকরণে এসব শব্দকে সমোচ্চারিত শব্দ (samoccarito sabda) বলে। বাংলা ভাষায় শব্দ প্রয়োগ বা বাক্য গঠন করতে হলে এসব শব্দের বানান ও অর্থ সম্পর্কে সঠিক জ্ঞান থাকা প্রয়োজন।

  1. কপাল (ললাট)- কপালের লেখা খণ্ডাবে কে?
    কপোল (গণ্ডদেশ)- কপোল ভাসিয়া যায় দুই নয়নের জলে।
  2. কটি (কোমর)- মাসুম পরে গিয়ে কটিতে ব্যথা পেয়েছে।
    কোটি (শতলক্ষ)- বাংলাদেশে এখন কোটিপতির সংখ্যা অনেক।
  3. করি (সম্পন্ন করা)- মনে হয় কত কিছুই যে করি।
    করী (হাতি)- ইচ্ছে করলেই তো আর করী কেনা যায় না।
  4. কু-শাসন (খারাপ শাসন)- দেশে কু-শাসন চললে জনগণের শান্তি থাকে না।
    কুশাসন (কুশনির্মিত আসন)- প্রাচীনকালে নির্মিত এই কুশাসনটি দেখতে খুব সুন্দর।
  5. কমল (পদ্মফুল)- কাঁটা হেরি ক্ষান্ত কেন কমল তুলিতে?
    কোমল (নরম)- কোমলে কঠোরে মেশা মানব-জীবন।
  6. কূট (জটিল)- কূটকচালি বাদ দিয়ে সরলভাবে কথা বলো।
    কুট (পর্বত শৃঙ্গ)- হিমালয় পৃথিবীর সর্বোচ্চ কুট।
  7. কৃত (যা করা হয়েছে)- কৃতকর্মের ফল একদিন ভোগ করতে হয়।
    ক্রীত (যা কেনা হয়েছে)- ক্রীতদাস প্রথা একটি অমানবীয় প্রথা।
  8. কোণ (দুই পার্শ্বের মিলনস্থল)- ঘরের কোণে যেন ময়লা জমে না থাকে।
    কোন (কিছু)- কোন জিনিসটি তুমি নিতে চাও বলো।
  9. কৃত্ত্ব (ছিন্ন)- কৃত্ত্ব বসনে লজ্জা নিবারণ হয় না।
    কৃত্য (করণীয়)- এ ব্যাপারে আমার যা কৃত্য তা আমি করবো।
  10. কতক (কিছু)- সকাল হলেই কতকগুলো পায়রা আমাদের উঠানে জড় হয়।
    কথক (বক্তা)- কথক ওস্তাদ না হলে কাহিনি শুনতে ভালো লাগে না।
  1. কূজন (পাখির ডাক)- পাখিদের কূজনে বন মুখরিত।
    কুজন (খারাপ লোক)- কুজনের সঙ্গ পরিত্যাগ করে চলবে।
  2. কুল (বংশ)- কুল মানুষের গায়ে লেখা থাকে না।
    কূল (নদীর তীর)- নদীর কূলে তরী ভেড়াও মাঝি।
  3. খড় (তৃণ)- এই দরিদ্র গ্রামটিতে প্রায় সকলের ঘরে খড়ের চাল।
    খর (তীব্র)- খর রৌদ্রে বাইরে গেলেই আমার মাথা ধরে।
  4. খুদ (চাউলের কণা)- মুরগির বাচ্চাগুলোকে খুদ খেতে দাও।
    খোদ (স্বয়ং)- খোদ বড় সাহেবের আদেশ, না মেনে উপায় আছে?
  5. খুর (পশুর পায়ের তলদেশ)- খুরের রোগ মারাত্মক পশুব্যাধি।
    ক্ষুর (চুলকাটার অস্ত্র)- এক ক্ষুরে সবাই মাথা মুড়িয়েছ দেখছি।
  6. ক্ষুরধার (ক্ষুরের মতো তীক্ষ্ণ ধার)- নতুন বউয়ের ক্ষুরধার কথা শুনে সবাই অবাক।
    ক্ষুরধারা (তীব্র স্রোত)- ভরা নদী ক্ষুরধারা খর পরশা।
  7. গোল (গোলমাল)- গোল করো না গোল করো না খোকন ঘুমায় খাটে।
    গোল (বৃত্তাকার)- পৃথিবী গোল, সুতরাং একদিন দেখা হবে।
  8. গোলক (গোলবস্তু)- গোলক নিক্ষেপে আজাদ প্রথম হয়েছে।
    গোলোক (বৈকুণ্ঠ)- মৃত্যুর পর গোলোকবাস হবে, না নরকবাস হবে কে জানে?
  9. গিরিশ (শিব)- হিন্দুরা গিরিশকে পূজা করে।
    গিরীশ (হিমালয়)- আকাশে মাথা তুলে উত্তরে দাঁড়িয়ে আছে গিরীশ।
  10. গোচর (প্রত্যক্ষ)- গোচরে-অগোচরে সংসারে কত কাণ্ড ঘটে।
    গো-চর (গরু চরার স্থান)- লোকসংখ্যা বৃদ্ধির ফলে আজকাল গো-চর ভূমি প্রায় পাওয়াই যায় না।
  1. গোকুল (বৃন্দাবন)- কংসহন্ত দিনে দিনে বাড়িছে গোকুলে।
    গো-কুল (গরু জাতি)- গো-কুল মানবকুলের জন্য মহা উপকারী।
  2. গুন (দড়ি)- গুন টেনে নৌকা চলে।
    গুণ (ধর্ম, বৈশিষ্ট্য)- আগুনের গুণই দহন করা।
  3. গোঁড়া (অন্ধ বিশ্বাসী)- সমাজ প্রগতির ক্ষেত্রে গোঁড়ারা মস্ত বড় বাধা।
    গোড়া (মূল)- আগা কেটে গোড়ায় জল ঢাললে আর কী হবে?
  4. চির (দীর্ঘ)- চিরকাল দুঃখে কাটল, সুখের মুখ দেখা হলো না।
    চীর (ছিন্ন বস্ত্র)- চীরবাসে গেল চিরকাল।
  5. চূত (আম গাছ)- চূতে মিষ্টি আম ধরেছে।
    চ্যুত (ভ্রষ্ট, ছিন্ন)- অফিসের নিয়ম ভঙ্গ করলে চাকরিচ্যুত তো হতেই হবে।
  6. চাল (ঘরের চাল)- টিনের চালে বৃষ্টির পতন শুনতে মধুর।
    চাল (চাউল)- ঘরে যে চাল বাড়ন্ত।
    চাল (গতি, কৌশল)- একি দাবার চাল যে জীবনেও একই ফল দেবে?
  7. চতুর (চালাক)- ছোকরাটা বেশ চালাক চতুর।
    চত্বর (চাতাল)- স্কুল চত্বরে বিশাল সমাবেশ হয়েছে।
  8. চতুষ্পদ (চার পা বিশিষ্ট)- গরু একটি চতুষ্পদ প্রণী।
    চতুষ্পথ (চৌমাথা)- সন্ধ্যায় চতুষ্পথে আজ সভা বসবে।
  9. ছাড় (ত্যাগ)- শর্তে কিছুটা ছাড় না দিলে আমার পক্ষে চুক্তি করা সম্ভব নয়।
    ছার (তুচ্ছ)- লোভের কাছে কত মহৎ ব্যক্তি পরাজয় মানলেন, তুমি তো কোন ছার।
  10. ছোরা (বড় চাকু)- সন্ত্রাসীরা ছোরা দেখিয়ে লোকটার সর্বস্ব লুট করে নিল।
    ছোড়া (তরুণ)- ক্লাবে যোগ দিয়েই ছোড়া তো দারুণ খেলছে।
  1. ছাঁদ (ভঙ্গি-আকৃতি)- কি ছাঁদে কবরী বাঁধি লব আজ?
    ছাদ (ঘরের আচ্ছাদন)- এ ছাদে দেখি পানি পড়ে।
  2. জড় (অচেতন)- জড়বস্তু প্রাণহীন।
    জ্বর (রোগবিশেষ)- দেশে ম্যালেরিয়া জ্বর নতুন করে দেখা দিয়েছে।
  3. জলা (জলাময় নিম্নভূমি)- জলা-জঙ্গলের দেশে রোগ-বালাইয়ের শেষ নেই।
    জ্বলা (দগ্ধ হওয়া)- কী জ্বলায় যে জ্বলছি তা বলার উপায় নেই।
  4. জাম (ফল বিশেষ)- পাকা জামের মধুর রসে রঙিন করি মুখ।
    যাম (প্রহর)- রাত্রির এখন তৃতীয় যাম।
  5. জালা (বড় পাত্র বিশেষ)- জালায় পানি ধরে রাখো।
    জ্বালা (যন্ত্রণা)- জীবনে জ্বালা যন্ত্রণার শেষ নেই দেখছি।
  6. জ্যোতি (তেজ)- দ্বিপ্রহরের সূর্যের জ্যোতি তীব্র হয়।
    যতি (বিরাম চিহ্ন)- বিরাম চিহ্নের ব্যবহার না জানলে ঠিক মতো পড়া হয় না।
  7. জাল (ফাঁদ, নকল)- এভাবে ষড়যন্ত্রের জালে জড়িয়ে পড়তে হবে তা ভাবিনি।
    জ্বাল (আগুন জ্বালানো)- সন্ধ্যা হয়েছে, প্রদীপটি জ্বাল।
  8. যমক (যমজ)- যমক অলঙ্কারে একটি শব্দের দুটি অর্থ হয়।
    জমক (সমারোহ)- একটু জাঁকজমক না হলে কি অনুষ্ঠান জমে?
  9. জোর (শক্তি)- দুর্ঘটনার পর শরীরে তেমন জোর পাই না।
    জোড় (যুগল)- কি হে মানিক জোড়, চললে কোথায় দুজনে?
  10. জ্যৈষ্ঠ (মাস বিশেষ)- জ্যৈষ্ঠ মাসে আম-কাঁঠাল পাকে।
    জ্যেষ্ঠ (অগ্রজ)- ফারুকের জ্যেষ্ঠ ভ্রাতা দীর্ঘদিন প্রবাসে রয়েছেন।
  1. ঝুরি (বটগাছ ইত্যাদির জট)- ঝুরি নেমে নেমে বটগাছটি বহু জায়গা জুড়ে বিস্তৃতি হয়েছে।
    ঝুড়ি (চাঙারি)- ঝুড়ি ভরে কী নিয়ে যাচ্ছ হাটে?
  2. জানু (হাঁটু)- পা পিছলে পড়ে গিয়ে জানুতে আঘাত পেয়েছি।
    ঝানু (পাকা, চতুর)- ঝানু লোকের সাথে টেক্কা দাও!
  3. ঝাড়া (নাড়া দেয়া)- ভেজা কাপড়টা ঝাড়া দিয়ে পারবে না।
    ঝারা (সচ্ছিদ্র পাত্র)- ঝারাটা নিয়ে গিয়ে ফুলগাছে পানি দাও।
  4. টিকা (রোগ নিবারক)- শিশুকে পেলিও টিকা দিতে হবে।
    টীকা (সংক্ষীপ্ত ব্যাখ্যা)- টীকা ভাষ্য ছাড়া এই কঠিন বইয়ের মর্ম বোঝা যাবে না।
    টেকা (স্থায়ী হওয়া) রীতিমতো পড়াশুনা না করলে প্রতিযোগিতায় টেকা যাবে না।
  5. তদীয় (তার)- তদীয় ভ্রাতা কাল বাড়ি এসেছে।
    ত্বদীয় (তোমার)- ত্বদীয় আচরণ সমর্থনযোগ্য নয়।
  6. তরণী (নৌকা)- গান গেয়ে কে আসে তরণী বেয়ে?
    তরুণী (যুবতি)- আমাদের নষ্ট সমাজে তরুণী মেয়েদের নিয়ে পিতামাতারা যথেষ্ট শঙ্কিত।
  7. তন্ত্রী (তাঁত)- তাঁতিপাড়ায় তন্ত্রী চলেছে খটাখট শব্দ করে।
    তন্ত্রি (তার)- তন্ত্রিতে আঘাত হেনে দীপক রাগিনী বাজাও।
  8. ত্বরিত (দ্রুত)- ত্বরিত বাড়ি ফিরে এসো।
    তড়িৎ (বিদ্যুৎ)- তড়িৎ থেকে সাবধান।
  9. তুলা (তুলনা)- কী দিয়ে দেবে কবি সে মুখের তুলা?
    তুলা (কার্পাস তুলা)- তুলায় সুতা হয়।
  10. তত্ত্ব (গূঢ় অর্থ)- অত তত্ত্ব কথা বুঝি না ভাই, সোজা করে বল।
    তথ্য (সংবাদ)- রচনাটি যথেষ্ট তথ্যবহুল।
  1. দাড়ি (শ্মশ্রু)- দাড়ি কাটতে গিয়ে যেন গাল কেটে ফেল না।
    দাঁড়ি (পূর্ণচ্ছেদ)- দাঁড়ি না দিলে বাক্য শেষ হয়েছে বুঝবো কী করে?
    দাঁড়ি (যে নৌকার দাঁড় টানে)- দাঁড়ি এ যে তরণীর পাকা মাঝি-মাল্লা।
  2. দ্বারা (কর্তৃক)- তোমার দ্বারা কিছু হবে না।
    দারা (পত্নী)- দারা পরিবার নিয়ে সুখে থেকো।
  3. দর্প (গর্ব)- দর্প করা উচিত নয়।
    দর্ভ (তৃণ)- গরু দর্ভভোজী প্রাণী।
  4. দূত (সংবাদবাহক)- আগেকার দিনে দূতের মাধ্যমে সংবাদ আদান-প্রদান হতো।
    দ্যূত (পাশা খেলা)- দ্যূত ক্রীড়ায় পরাজিত হয়ে পাণ্ডবরা বনবাসে যায়।
  5. দ্বার (দরজা)- দ্বারে দাঁড়ায়ে ভিখারি, ভিক্ষা দাও।
    দার (পত্নী)- দার পরিগ্রহ না করে আর কতদিন চলবে।
  6. দিন (দিবস)- দিন ফুরাল সন্ধ্যা হলো।
    দীন (দরিদ্র)- দীনের সেবা মহৎ কাজ।
  7. দেরি (বিলম্ব)- বাজারে গিয়ে যেন দেরি করো না।
    দেড়ী (দেড়গুণ)- এক গুণের দেড়ী দেয়া মানে তো অনেক।
  8. দীপ (প্রদীপ)- সন্ধ্যায় ঘরে ঘরে দীপ জ্বলে ওঠে।
    দ্বীপ (জলবেষ্টিত স্থান)- দ্বীপের নাম সন্দ্বীপ।
    দ্বিপ (হাতি)- দ্বিপ একটি বৃহৎ জন্তু।
  9. দৃপ্ত (বলিষ্ঠ)- দৃপ্ত পায়ে এগিয়ে চলো।
    দীপ্ত (উজ্জ্বল)- পরীক্ষায় ভালো ফলের কথা শুনে শামিমের মুখ দীপ্ত হয়ে উঠেছে।
  10. ধনী (ধনবান)- খোরশেদ এ গ্রামের সবচেয়ে ধনী লোক।
    ধ্বনি (শব্দ)- তোরা সব জয়ধ্বনি কর।
  1. ধরা (পৃথিবী)- ধরাকে সরা জ্ঞান করো না।
    ধড়া (বস্ত্র)- ধড়াচূড়া পরে চললে কোথায়?
  2. ধাতৃ (বিধাতা)- ধাতৃর কাছে প্রার্থনা করো।
    ধাত্রী (দাই)- হযরত মুহাম্মদ (স.) ধাত্রীমার নাম ছিল হালিমা।
  3. নাশ (ধ্বংস)- তোমার সংসারে দেখি সর্বনাশ নেমে এসেছে।
    নাস (নস্য)- হাঁচি আসবে নাকে দিলে নাস।
  4. নীর (পানি)- চোখে কেন বাহে নীর?
    নীড় (পাখির বাসা)- সন্ধ্যায় পাখিরা নীড়ে ফেরে।
  5. নিতি (রোজ)- নিতি নিতি এ পথে কোথায় যাও।
    নীতি (নিয়ম)- আইনের শাসন না থাকলে নীতি নিয়মের কউ ধার ধারে না।
  6. নিত্য (প্রতিদিন)- হত্যা আর সন্ত্রাস এখন সংবাদপত্রের নিত্যকার খবর।
    নৃত্য (নাচ)- এবার শুরু হবে নৃত্য প্রতিযোগিতা।
  7. নিশিত (ধারাল)- নিশিত অস্ত্রে আবার শান দেয়ার দরকার কী?
    নিশীথ (গভীর রাত)- নিশীথে সবাই নিদ্রামগ্ন।
  8. নিরাশ (আশাহীন)- নিরাশ হয়ো না, চেষ্টা চালিয়ে যাও।
    নিরাস (দূর করা)- আমার নিরাশা নিরাস করো প্রভু।
    নিরাশ (হতাশ)- আশা-নিরাশার দোলাচলে আছি।
  9. নিবার (নিষেধ করা)- ক্রোধ নিবার ভাই।
    নীবার (ধান বিশেষ)- নীবার ধান্যে হবে নবান্ন।
  10. নিরস্ত্র (অস্ত্রহীন)- নিরস্ত্রকে আঘাত করা বীরের ধর্ম নয়।
    নিরস্ত (ক্ষান্ত)- নিরস্ত হও, নইলে খুনোখুনি হয়ে যেতে পারে।
  11. নিচ (নিম্ন)- পাহাড়ের নিচে একটি বনভূমি।
    নীচ (নিকৃষ্ট)- তুমি এত নীচ প্রকৃতির তা আগে জানা ছিল না।
  12. নিধান (আধার)- কালের নিধানে কত কিছু যে ঘটে।
    নিদান (অন্তিম)- নিদানকালে আর ওষুধ খাইয়ে লাভ নেই।
  13. নিরসন (দূরীকরণ)- মনের কালিমা সব নিরসন কর।
    নিরশন (অনাহার)- দুর্ভিক্ষে বহু মানুষের নিরশনে দিন কাটে।
  14. নিরাকার (আকারহীন)- নিরাকার কিছু কল্পনা করো না।
    নীরাকার (পানির আকার)- নীরাকার তো আসলে নিরাকার।

অন‌্যান‌্য বর্ণ দিয়ে জোড় বা সমোচ্চারিত শব্দ

অন‌্যান‌্য বর্ণ দিয়ে জোড় বা সমোচ্চারিত শব্দ পড়তে নিচের বাটনে ক্লিক করুন।

অ থেকে ঔ পর্যন্ত জোড় বা সমোচ্চারিত শব্দ প থেকে হ পর্যন্ত জোড় বা সমোচ্চারিত শব্দ

পরীক্ষার জন‌্য ব‌্যাকরণ-এর গুরুত্বপূর্ণ বিষয়সমূহ

সকল প্রকার ভর্তি পরীক্ষা, চাকরির পরীক্ষা, HSC পরীক্ষা ও SSC পরীক্ষার জন‌্য বাংলা ব‌্যাকরণ-এর গুরুত্বপূর্ণ বিষয়সমূহের লিংক নিচে দেয়া হলো। হলুদ বাটনে ক্লিক করে বিষয়ভিত্তিক পেজগুলো ভিজিট করুন।

বাগধারা কাকে বলে? অ, আ দিয়ে বাগধারা পড়তে এখানে ক্লিক করুন। ই, ঈ, উ, ঊ, এ, ও দিয়ে বাগধারা পড়তে এখানে ক্লিক করুন। ক, খ দিয়ে বাগধারা পড়তে এখানে ক্লিক করুন। গ, ঘ, চ, ছ দিয়ে বাগধারা পড়তে এখানে ক্লিক করুন। জ, ঝ, ট, ঠ, ড, ঢ, ত, থ, দ, ধ, ন দিয়ে বাগধারা পড়তে এখানে ক্লিক করুন। প, ফ, ব, ভ, ম, য, র, ল, শ, ষ, স, হ দিয়ে বাগধারা পড়তে এখানে ক্লিক করুন। সন্ধি কি? সন্ধি শব্দের অর্থ কি? পড়তে এখানে ক্লিক করুন। এককথায় প্রকাশ বা বাক‌্য সংকোচন পড়তে এখানে ক্লিক করুন সমাস ‍কি? সমাস কত প্রকার? পড়তে এখানে ক্লিক করুন। কারক কাকে বলে? কারক কত প্রকার? বিভক্তি কি? বিভক্তি কত প্রকার? পড়তে এখানে ক্লিক করুন। সমার্থক শব্দ বা প্রতিশব্দ কি ও এর উদাহরণ পড়তে এখানে ক্লিক করুন। বিপরীত শব্দ পড়তে এখানে ক্লিক করুন লিঙ্গ প্রকরণ এর বিস্তারিত এখানে পড়ুন বানান শুদ্ধিকরণ ও বাক্য শুদ্ধিকরণ এর বিস্তারিত এখানে পড়ুন বচন অর্থ সংখ্যার ধারণা, বিস্তারিত এখানে পড়ুন বিরামচিহ্ন কাকে বলে? বাংলায় বিরামচিহ্ন কয়টি ও কি কি? পড়তে এখানে ক্লিক করুন। প্রমিত বাংলা বানান কী? প্রমিত বাংলা বানানের দশটি নিয়ম লেখ। পড়তে এখানে ক্লিক করুন। প্রমিত বাংলা বানানের প্রয়োজনীয়তা কী? বুঝিয়ে লেখ। পড়তে এখানে ক্লিক করুন। বিদেশি শব্দে প্রমিত বাংলা বানানের পাঁচটি নিয়ম লেখ। পড়তে এখানে ক্লিক করুন।