খাদ‌্য সংরক্ষণ- সবজি, মাংস, ডাল, সিরকা, গোলাপজল, পাঁচফোড়ন

সবজি শুকিয়ে সংরক্ষণ, মাংস শুকিয়ে সংরক্ষণ, ডালের বড়ি সংরক্ষণ, সিরকা সংরক্ষণ, গোলাপজল ও কেওড়াজল সংরক্ষণ, পাঁচফোড়ন সংরক্ষণ।

খাদ‌্য সংরক্ষণ করার উপায়

কিভাবে খাদ‌্য সংরক্ষণ করবেন? খাদ‌্য সংরক্ষণ করার উপায় কি? এখানে কয়েকটি খাদ‌্য সংরক্ষণ করার উপায় আলোচনা করা হয়েছে। অন‌্যান‌্য পেজে আরো খাদ‌্য সংরক্ষণ করার উপায় ও বিভিন্ন রেসিপি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। নিচের বাটনগুলোতে ক্লিক করে অন‌্যান‌্য পেজগুলো ভিজিট করতে পারেন।

খাদ‌্য সংরক্ষণ করার উপায়

সবজি শুকিয়ে সংরক্ষণ

পেঁয়াজ ও রসুন শুকানোঃ পেঁয়াজের দুই দিক সামান‌্য কেটে ফেলে খোসা ছাড়ান। ৫ মি.মি. পুরু স্লাইস করে কাটুন। চড়া রোদে পরিষ্কার কাপড়ের উপর ছড়িয়ে দিন। মচমচে করে শুকান। রসুনের কোষ দুই টুকরা করে পেঁয়াজের মত শুকান। এপ্রিল মাসের ঝড় বৃষ্টি আরম্ভ হওয়ার আগে সংরক্ষণ করুন।

গাজর শুকানোঃ গাজরের বোটার দিকের সবুুজ সামান‌্য অংশ বাদ দিন। খোসা ছাড়ান। ৫ মি.মি. পুরু চাকা টুকরা করুন। ফুটানো পানিতে ৩-৪ মিনিট ভাপিয়ে নিন। প্রতি লিটার (৪.৫ কাপ) পানিতে ২.৫ গ্রাম (আধা চা চামচ) হিসাবে পটাসিয়াম-মেটা-বাই-সালফাইট মিশিয়ে ভাপানো ঠাণ্ডা গাজর ১-৫ ঘন্টা ডুবিয়ে রাখুন। পানি ঝড়িয়ে ডালায় বা চালনিতে হালকাভাবে ছড়িয়ে দিয়ে চড়া রোদে শুকান। মার্চ এপ্রিল মাসে চড়া রোদে ৩-৪ দিন শুকাতে হবে।

আলু শুকানোঃ কম চোখযুক্ত বড় আকারের আলু বেছে নিন। প্রতি লিটার (৪ কাপ) পানিতে ২ গ্রাম ( চা চামচ) পটাসিয়াম-মেটা-বাই-সালফাইট মিশিয়ে রাখুন। আলু পরিষ্কার করে ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে ৩ মি.মি. পুরু স্লাইস করুন। ফুটানো পানিতে ২ মিনিট ভাপান। ভাপানো আলু সামান‌্য ঠাণ্ডা করে সংরক্ষক দ্রবণে ১৫ মিনিট ডুবিয়ে রাখুন। আলুর পানি ঝরিয়ে পেঁয়াজের মত রোদে শুকান। আলু শুকিয়ে মচমচে হয়ে টোস্ট বিস্কুটের মত গুঁড়িয়ে ভাঙ্গলে আর রোদে শুকাবে না। ছোট ছোট পরিষ্কার কৌটায় মুখবন্ধ করে রাখবেন। একবার কৌটার মুখ খুললে সে আলু ব‌্যবহার করবেন নয়তো আবার রোদে শুকিয়ে রাখবেন। শুকনা আলু চিপসের মতো ডুবো তেলে ভাজা যায়। সংরক্ষণের সময় মার্চ ও এপ্রিল মাস।

বাঁধাকপি শুকানোঃ টাটকা সবুুজ রং এর ভারী ওজনের ঠাসা বাঁধাকপি নিন। ধুয়ে মোটা কুচি করুন। ফুটানো পানিতে ৩ মিনিট ভাপান। প্রতি লিটার পানিতে ১.২৫ গ্রাম ( চা চামচ) পটাসিয়াম-মেটা-বাই-সালফাইট মিশিয়ে ভাপানো বাঁধাকপি ১ ঘন্টা ডুবিয়ে রাখুন। কাপড়ের উপর ছড়িয়ে দিয়ে চড়া রোদে মচমচে করে করে শুকান। ধুলাবালি থেকে রক্ষা করার জন‌্য আর একটি পাতলা কাপড় দিয়ে ঢেকে দেওয়া যায়। কৌটায় ঠেসে ভরে মুখ বন্ধ করুন। মাসে একবার কৌটার বাঁধাকপি রোদে দিলে ভাল থাকে।

মটরশুঁটি শুকানোঃ পরিপক্ক ও তাজা মটরশুঁটির দানা ছাড়িয়ে নিন। নতুন আলপিন দিয়ে প্রতিটি দানার কেন্দ্রবিন্দু পর্যন্ত একটি ছিদ্র করুন। প্রতি লিটার পানিতে ৫ গ্রাম (১ চা চামচ) পটাসিয়াম-মেটা-বাই-সালফাইট, ১ গ্রাম ( চা চামচ) ম‌্যাগনেসিয়াম অক্সাইড এবং ১ গ্রাম ( চা চামচ) খাওয়ার সোডা মিশিয়ে ফুটিয়ে নিন। ফুটানো পানিতে মটরশুঁটি ৩-৪ মিনিট ভাপান। ভাপাবার পরে মটরশুঁটি পানি ঝরিয়ে চড়া রোদে খুব ভালো করে শুকান। এরপর মুখ বন্ধ পাত্রে রাখুন।

শুকানো সবজি রান্নার আগে ৫-৬ ঘন্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখলে আবার তাজা হয়ে উঠবে।

মাংস শুকিয়ে সংরক্ষণ

উপকরণঃ মাংস, হলুদ বাটা, লবণ, মাংস গাঁথার জন‌্য তার।

প্রস্তুত প্রক্রিয়াঃ

১। সদ‌্য জবাই করা গরুর মাংস ধুয়ে চাক চাক টুকরা করে হলুদ ও লবণ মাখিয়ে নিন। প্রতি কিলোগ্রাম মাংসে ২ চা চামচ হলুদ ও ১ টেবিল চামচ লবণ মাখিয়ে নিন।

২। ডুবো পানিতে মাংস সিদ্ধ করুন। খেয়াল রাখবেন মাংস ঠিকমতো সিদ্ধ হওয়া দরকার। কম সিদ্ধ হলে সংরক্ষণ করা যাবে না, আবার বেশি সিদ্ধ হলে আঁশ খুলে যাবে।

৩। মাংস সিদ্ধ হলে চালনিতে ছড়িয়ে দিয়ে পানি ঝড়িয়ে নিন।

৪। যে তারে মাংস গাঁথবেন তা আগেই ফুটানো পানিতে দুই তিন মিনিট ডুবিয়ে জীবাণুমুক্ত করবেন। শুকনা তারে মাংস গাঁথুন। মাংস ৭-৮ দিন চড়া রোদে শুকান। বরষার সময় চুলার ধারে তার ঝুলিয়ে রেখেও চুলার আগুনের তাপে মাংস শুকানো যায়।

৫। মুখবন্ধ পরিষ্কার শুকনা পাত্রে সংরক্ষণ করুন। তিন মাস পর্যন্ত সংরক্ষণ করা যায়। রান্নার আগে মাংস ৫-৬ ঘন্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে।

ডালের বড়ি সংরক্ষণ

উপকরণঃ মাষকলাই এর ডাল ২ কাপ, পাকা চালকুমড়া অংশ।

প্রস্তুত প্রক্রিয়াঃ

১। বড়ি দেয়ার আগের দিন বড় চাটাই বা পাটি এবং পাতলা কাপড় সাবান দিয়ে ধুয়ে শুকিয়ে রাখুন।

২। বিকালে ডাল ঝেড়ে বেছে একরাত ভিজিয়ে রাখুন।

৩। আর সন্ধ‌্যা রাতে মাঝারি আকারের পাকা চালকুমড়ার খোসা ও নরম অংশ ফেলে সবজি কুরুনিতে কুরিয়ে নিন। কুমড়া খুব ভাল করে ধুয়ে নিন যেন টকভাব নেমে যায়। পাতলা কাপড়ে কুমড়া বেঁধে ঝুলিয়ে রেখে পানি ঝরিয়ে নিন অথবা কাপড়ে কুমড়া বেঁধে একরাত ভারী কিছু দিয়ে চাপা দিয়ে রাখুন, পানি সরে গিয়ে কুমড়া ঝরঝরে হবে।

৪। পরদিন খুব ভোরে ডাল কচলে ধুয়ে নিন যেন খোসা না থাকে এবং সাদা হয়। ডাল বেটে নিন (খুব মিহি করবেন না)।

৫। ডালে কুমড়া মিশিয়ে নিন। খুব ভালো করে হাত দিয়ে কুমড়া ফেটতে থাকুন। ফেটতে ফেটতে হালকা হয়ে উঠলে বাটিতে পানি নিয়ে একটা বড়ি ফেলুন। বড়ি পানিতে ভাসলে আর ফেটবেন না।

৬। চড়া রোদে ধোয়া শুকনা কাপড় পাটিতে বিছিয়ে বড়ি দিন। বেলা নয়টার মধ‌্যে বড়ি দেয়া শেষ করবেন। বড়ি ৩-৪ দিন রোদে শুকান। শেষদিন কাপড় টানা দিয়ে ঝুলিয়ে শুকান যেন দুই পিঠ ভালোভাবে শুকায়। প্রতিদিন রাতে বড়ির কাপড় টানা দিয়ে ঝুলিয়ে রাখবেন।

৭। বড়ি প্লাস্টিকের ব‌্যাগে মুখ সীল করে রাখুন অথবা পরিষ্কার শুকনা মুখ বন্ধ টিনের পাত্রে রাখুন। পৌষ-মাঘ মাসে শীতের দিনে নতুন ডাল এবং গাছপাকা চালকুমড়ার বড়ি ভাল হয়। গরমের দিনে এবং চালকুমড়া পুরানো হলে বড়ি টক হয় ও ফেটে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

সিরকা সংরক্ষণ

উপকরণঃ পানি ৩ কাপ, সাইট্রিক এসিড চা চামচ, এসেটিক এসিড কাপ, সিরকা রাখার জন‌্য বোতল ১ টি।

প্রস্তুত প্রক্রিয়াঃ

১। সিরকার বোতল এবং বোতলের মুখ সাবান দিয়ে ধুয়ে ফুটিয়ে জীবাণুমুক্ত করুন। চড়া রোদে বোতল শুকিয়ে রাখুন।

২। পানি ২০ মিনিট ফুটিয়ে বিশুদ্ধ করুন। পানি ঠাণ্ডা হলে ৩ কাপ নিন। সাইট্রিক এসিড মিশান। এসেটিক এসিড মিশিয়ে বোতলে ভরুন।

লাল সিরকাঃ সিরকার রেসিপিতে ২ চা চামচ চিনি ক‌্যারামেল করে ফুটানো পানির সংগে মিশিয়ে লাল সিরকা তৈরি করুন। ক‌্যারামেল তৈরি করার পদ্ধতি এখানে দেখুন

গোলাপজল ও কেওড়াজল সংরক্ষণ

উপকরণঃ ফুটানো পানি কাপ, গোলাপ নির্যাস চা চামচ।

প্রস্তুত প্রক্রিয়াঃ

১। গোলাপ জলের একটি বড় বোতল গরম পানি ও সাবান দিয়ে ধুয়ে শুকিয়ে রাখুন।

২। ফুটানো পানি কিছু গরম থাকতেই গোলাপের নির্যাস মিশিয়ে বোতলে ভরুন। ঠাণ্ডা হলে বোতলের মুখ বন্ধ করুন।

৩। একই পদ্ধতিতে কেওড়ার নির্যাস দিয়ে কেওড়াজল তৈরি করুন।

পাঁচফোড়ন সংরক্ষণ

উপকরণ পরিমাণ উপকরণ পরিমাণ
১। জিরা ২ চা চামচ ৪। মৌরি ১ চা চামচ
২। কালজিরা চা চামচ ৫। রাঁধুনি ২ চা চামচ
৩। মেথি ১ চা চামচ

১। মসলা ঝেড়ে বেছে একসাথে মিশিয়ে মুখবন্ধ পাত্রে রাখুন। পাঁচফোড়নের মসলায় ১ চা চামচ সরিষা এবং ১ চা চামচ জইনও মিশানো যায়।

মজাদার মাংসের রেসিপি

চিলি বিফ রেসিপি, গোলাশ রেসিপি, মিট লোফ রেসিপি, তাক্‌কা রেসিপি, হান্টার বিফ রেসিপি, মোসাকা রেসিপি, নুডল্‌স মোসাকা রেসিপি দেখতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন।

মজাদার মাংসের রেসিপি এখানে

কাবাব রেসিপি-মুঠা-তাজ-আদানা-জালি-হাড়ি-ভুনা-চাপলি-দম

মুঠা কাবাব রেসিপি, তাজ কাবাব রেসিপি, আদানা কাবাব রেসিপি, জালি কাবাব রেসিপি, হাড়ি কাবাব রেসিপি, ভুনা কাবাব রেসিপি, চাপলি কাবাব রেসিপি, দম কাবাব রেসিপি দেখতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন।

কাবাব রেসিপি এখানে দেখুন

কাবাব-শিক-বোটি-মোগলাই-শাহেরজাদ-হুসাইনী-মরোক্কান

শিক কাবাব রেসিপি, বোটি কাবাব রেসিপি, মোগলাই কাবাব রেসিপি, শাহেরজাদ কাবাব রেসিপি, হুসাইনী কাবাব রেসিপি, মরোক্কান মাটন কাবাব রেসিপি, খাসীর রানের ভুনা কাবাব রেসিপি দেখতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন।

কাবাব রেসিপি এখানে দেখুন

মাংসের রেসিপি-বিফ ফ্র‌্যাজি, বিফ স্টু, কাটা মসলার মাংস

বিফ ফ্র‌্যাজি রেসিপি, বিফ স্টু রেসিপি, কাটা মসলার মাংস রেসিপি, মেথি কালিয়া রেসিপি, মেথি কারি রেসিপি, মাংসের কালিয়া রেসিপি দেখতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন।

মাংসের রেসিপি এখানে দেখুন

মোরগের রেসিপি- মোরগের কোরমা, তন্দুরী মোরগ

মোরগের কোরমা রেসিপি, আনারস মোরগ রেসিপি, নারিকেল মোরগ রেসিপি, মোগলাই মোরগ রেসিপি, টমেটো চিকেন কারি রেসিপি, তন্দুরী মোরগ রেসিপি দেখতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন।

মোরগের রেসিপি এখানে দেখুন

বিভিন্ন রকম মসলা তৈরি শিখুন

বিভিন্ন রকম মসলা- কারি মসলা, গুঁড়া গরম মসলা, কাবাবের মসলা, আচারের মসলা, চাট চটপটির মসলা প্রস্তুত প্রক্রিয়া দেখতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন।

মসলা প্রস্তুত প্রক্রিয়া এখানে দেখুন

মোরগের রোস্ট, মোরগ খোবানী, সিঙ্গাপুর চিকেন

মোরগের রোস্ট রেসিপি, মোরগ খোবানী রেসিপি, ওভেন রোস্ট চিকেন রেসিপি, সিঙ্গাপুর চিকেন রেসিপি, আমেরিকান ফ্রাইড চিকেন রেসিপি, ফ্রেঞ্চ গারলিক চিকেন রেসিপি দেখতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন।

মোরগের রোস্ট রেসিপি এখানে দেখুন

সিরাপ, ক‌্যারামেল, সরবত, আমের স্কোয়াস, ম‌্যাংগো ফুল, ফ্রুট পাঞ্চ

সিরাপ তৈরি করার রেসিপি, ক‌্যারামেল তৈরি করার রেসিপি, বেলের সরবত রেসিপি, তেঁতুলের সরবত রেসিপি, কাঁচা আমের স্কোয়াস রেসিপি, ম‌্যাংগো ফুল রেসিপি, জামের সরবত রেসিপি, ফ্রুট পাঞ্চ রেসিপি, তাজা রসের পাঞ্চ রেসিপি, বাতাবি লেবুর সরবত রেসিপি দেখতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন।

পানীয় বা সরবত তৈরির রেসিপি এখানে দেখুন

রান্নার বিভিন্ন পদ্ধতি

সিদ্ধ, ভাপে সিদ্ধ, ভাজা, ডুবো তেলে ভাজা, সেকা, টালা, ঝলসান, পোড়ান, বেকিং, স্টুয়িং (stewing), ব্রেইজিং (braising), প‌্যান ব্রয়লিং (pan broiling), পোচিং (poaching), গ্রীলিং (grilling), টোস্টিং (toasting), স্ক‌্যালোপিং (scalloping), বারবিকিউয়িং (barbequing), ক‌্যারামেলাইজিং (caramelizing), গ্ল‌্যাসিং (glaceing), ডেমি গ্ল‌্যেইস (demi glace) দেখতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন।

রান্নার বিভিন্ন পদ্ধতি এখানে দেখুন

চাটনির রেসিপি- পুদিনা, জলপাই, আম, করমচা, গারলিক, তেঁতুল

পুদিনার চাটনি রেসিপি, জলপাইর চাটনি রেসিপি, আমের চাটনি রেসিপি, করমচার চাটনি রেসিপি, বেগুনের চাটনি রেসিপি, গারলিক ডিপ রেসিপি, বেগুনের ঝাল মসলার চাটনি রেসিপি, নারিকেলের চাটনি রেসিপি, কাঁচা তেঁতুলের চাটনি রেসিপি, তেঁতুলের চাটনি রেসিপি দেখতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন।

চাটনির রেসিপি এখানে দেখুন